Press "Enter" to skip to content

ইডেনের সাবেক অধ্যক্ষ খুন, দুই আসামি রিমান্ডে

ইডেন মহিলা কলেজের সাবেক অধ্যক্ষ মাহফুজা চৌধুরী পারভীন হত্যা মামলায় গ্রেফতার দুই আসামির চার দিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত।

শুনানি শেষে শনিবার ঢাকা মহানগর হাকিম শাহিনূর রহমান রিমান্ডের এ আদেশ দেন।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা নিউমার্কেট থানার এসআই আলমগীর হোসেন মজুমদার আসামিদের আদালতে হাজির করে ১০ দিনের রিমান্ড আবেদন করেন।

রিমান্ডে যাওয়া আসামিরা হলেন- গৃহকর্মী রিতা আক্তার ওরফে স্বপনা এবং দুই গৃহকর্মীর জোগানদাতা রুনু বেগম ওরফে রাকিবের মা।

এর আগে বৃহস্পতিবার রাতে এলিফেন্ট রোডের নিজ বাসায় খুন হন মাহফুজা চৌধুরী।

আবেদনে বলা হয়, এটা একটা চাঞ্চল্যকর হত্যা মামলা। আসামিরা তাদের নাম-ঠিকানা গোপন করে মিথ্যা নাম-ঠিকানা প্রদান করে ঢাকা শহরের বিভিন্ন বাসায় কাজের বুয়া হিসেবে যোগদান করে বিভিন্ন অপরাধমূলক কর্মকাণ্ড করে থাকে।

গত ১০ ফেব্রুয়ারি এ আসামিরাসহ অজ্ঞাতনামা পলাতক আসামিরা পরস্পর যোগসাজশে মাহফুজা চৌধুরী পারভীনকে একা পেয়ে শ্বাসরোধ করে হত্যা করে। ২০ ভরি স্বর্ণ, একটা মোবাইল ফোনসহ নগদ ৫০ হাজার টাকা চুরি করে নিয়ে পালিয়ে যায়। মামলার সুষ্ঠু তদন্তের স্বার্থে, মূল রহস্য উদঘাটন, পলাতক আসামিদের গ্রেফতার ও চোরাইকৃত মালামাল উদ্ধারের লক্ষ্যে আসামিদের জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ১০ দিনের রিমান্ড আবেদন করেন তদন্ত কর্মকর্তা।

আসামি রুনু বেগমের পক্ষে তার আইনজীবী এ কে এম আসাদুজ্জামান রিমান্ড বাতিলের আবেদন করেন। শুনানিতে তিনি বলেন, মাহফুজা চৌধুরী পারভীন তার কাছে একজন কাজের লোক চাইলে সে তাদের ঠিক করে দেয়। বাসায় কী হয়েছে কিছুই সে জানে না। সে ঘটনার সঙ্গে জড়িত না। তার বিরুদ্ধে সুনির্দিষ্ট কোনো অভিযোগ নেই।

তিনি বলেন, রুনু বেগমকে গত সোমবার আটক করা হয়। তার ওপর নির্যাতন করা হয়েছে। রিমান্ড দিলে সে মারা যাবে। আমি তার রিমান্ড বাতিলের প্রার্থনা করছি। প্রয়োজনে তাকে জেলগেটে জিজ্ঞাসাবাদ করা হোক।

অপর আসামি রিতা আক্তারের পক্ষে কোনো আইনজীবী ছিলেন না।

%d bloggers like this: